Want To Witness Football Passion? Read About V C Praveen

Published by BADGEB on

Last Updated 7:48 PM 27th November 2019 .

Jaydip Ray, BADGEB : ভি সি প্রভীন ছোটবেলা থেকে অন্ধ ফুটবল ভক্ত, উনার বাবার একটা গেস্ট হাউস ছিলো চেন্নাইতে কেরালার কোনো ফুটবল টিম চেন্নাই গেলে তাদের হোটেলে উঠতো। ভি পি সত্যেন, জ্যাকবরা চোট পেয়ে চেন্নাইতে চিকিৎসা করাতে গেলে ওই গেস্টহাউসে উঠতেন। কোঝিকোড়ে তাদের পড়শী ছিলেন ৫০-৬০ দশকের বিখ্যাত ডিফেন্ডার টি এ রহমান।

ভি সি প্রভীন স্বপ্ন দেখতেন একটি দারুন ফুটবল ক্লাব তৈরি করার এই সুযোগটা এলো তার কাছে যখন ভিভা কেরালা বন্ধ হয়ে গেলো। উনি উনার শ্বশুরমশাই শ্রী গোকুলাম গোপালনকে প্রস্তাব দিলেন নতুন ক্লাব করার যিনি আগে ভিভা কেরালার সাথে যুক্ত ছিলেন।

কেরালিয়ান লীগ খেলার সময়েই প্রভীনের মাথায় ছিলো এই প্লেয়ারগুলো কিছুদিন বাদেই অন্য কোন বড় ক্লাবে চলে যাবে তাই বড় কিছু ভাবতে হবে, এই ভাবনায় এ আই এফ এফের কাছে প্রস্তাব দিলেন আর সুযোগ এসে গেলো আই লিগে টিম নামানোর।

প্রভীন নেমে পড়লেন তার স্বপ্ন কে বাস্তব করতে শুধু আই লীগ খেলা নয় একদম গ্রাসরুট থেকে ফুটবল তুলে আনার কাজ শুরু করে দিলেন বিনু জর্জকে সামনে রেখে।

গোকুলাম এখন ফুটবল স্কুল, একাডেমি, রিজার্ভ টিম, মেয়েদের জাতীয় লীগ, আই লীগ সব কিছু একসাথে করছে এটা আর কোনো ভারতীয় ফুটবল টিমের নেই।

গোকুলাম প্ৰথমে ভেবেছিলো মাল্লাপুরমের মানজেরি স্পোর্টস কমপ্লেক্স ব্যবহার করবে পরে এ এফ সি লাইসেন্সের জন্য কোঝিকোড়ের ই এম এস করপোরেশন স্টেডিয়ামে খেলার কথা ভাবে।

কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলার পর তারা বিনামূল্যে এই স্টেডিয়ামটি পায় শর্ত এই স্টেডিয়ামের পুরো রক্ষণাবেক্ষণ থেকে সব কিছু তাদের করে নিতে হবে। প্রচুর ব্যয়সাপেক্ষ হলেও গোকুলাম কর্তৃপক্ষ রাজি হয়ে যায়।

তারা স্টেডিয়াম সারায়, পুরো স্টেডিয়াম নতুন করে রং করায়, ফ্লাডলাইটের রক্ষণাবেক্ষণ, মাঠ টাকেও নতুন করে করেন এই সব করে একদম নতুন চেহারা দিয়েছেন এই বছর। স্টেডিয়ামের সব কর্মী গোকুলাম কর্তৃপক্ষের।

কেউ কেউ দেখছিলাম বলেছেন গোকুলাম বিনা ভাড়ায় স্টেডিয়াম পাচ্ছে তারা যদি এই খরচ গুলোর কথা ভাবেন তাহলে দেখবেন এগুলো করতে কোটি টাকার ওপর খরচা করেছে গোকুলাম।

ফুটবলে বিনিয়োগ নিয়ে প্ৰভীন এক সাংবাদিকের প্রশ্নের উত্তরে বলেন ” আমি মনে করিনা ভারতীয় ফুটবল থেকে কেউ টাকা করতে পারবেন, এমনকি স্টেডিয়াম ভর্তি থাকলেও মনে করিনা কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি লাভ করতে পারবে। এটা কোনো লাভের ব্যাপার নয় এটা ফুটবলের প্রতি প্যাশন”

সত্যি পার্থ জিন্দালের পর আরেকজনের মুখে এটা শুনে মনে হলো ভারতবর্ষের ফুটবল এগোতে গেলে গোটা ২০-২৫ পার্থ জিন্দাল, ভি সি প্ৰভীনদের দরকার আছে।


0 Comments

Leave a Reply

0 Shares
Copy link
Powered by Social Snap