শীঘ্রই আসছে এনওসি, লাল-হলুদের পাখির চোখ আইএসএল!

প্রতিবেদনটি লেখার সময় লাল-হলুদ বাহিনীর হাতে এখনো এসে পৌঁছায়নি বহুপ্রতিক্ষিত এনওসি, যেটা পাওয়ার জন্য ইস্টবেঙ্গলকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে এক মাসেরও বেশি সময়, তবে তা এসে যাবে যেকোনো মুহূর্তেই। হ্যাঁ, লাল-হলুদের পক্ষ থেকে চিঠি পৌঁছেছে কোয়েস দপ্তরে, বিপুল পরিমাণ আর্থিক চাহিদার পথ থেকে সরে এসেছে ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। এক প্রকার সময়ের অভাবেই Read more…

স্পোর্টিং রাইটস ফেরত এসেছে আগেই, দরকার শুধু এনওসির। লালহলুদে চলছে দর-কষাকষি।

লাল-হলুদের অন্দরমহলে সমীকরণ যেন রোজ বদলাচ্ছে। প্রত্যেকদিন বদলে যাচ্ছে ছবি। সাপ-লুডো খেলার মতো কখনো পরিস্থিতির দখল নিচ্ছে কোয়েস, আবার পরমুহূর্তেই তাদের কে পিছনে ফেলে ছড়ি ঘোড়াচ্ছে লাল-হলুদ কর্তারা। লাল-হলুদের চিত্রনাট্য যে এখন সিলভার স্ক্রিনকেও হার মানাচ্ছে বলে দেওয়াই যায়। এর মধ্যেই সম্পূর্ণ ঘটনা অন্যদিকে মোড় নিলো যখন জানা গেল ২০২০-২১ Read more…

প্লেয়ার ছাড়তে সমস্যা নেই, শুধু নিয়ম অনুযায়ী কাগজপত্রের সমস্যা মিটুক। অপেক্ষায় দুই পক্ষই।

আমরাই জানিয়েছিলাম যে রিকি সাবঙ এবং হারমানপ্রিত লাল হলুদের জার্সি গায়ে চাপাবেন। ট্রান্সফারের বিষয় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেয়ে পাঠায় ফেডারেশন। তারপরেই ঘটে বিপত্তি। ফেডারেশনে এখনো কোয়েস ইস্টবেঙ্গল নামেই নথিভুক্ত আছে ইস্টবেঙ্গলের ফুটবল রাইটস। আর এরপরেই নড়েচড়ে বসে ফেডারেশন, তারা বুঝতে পারে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের পাঠানো কাগজপত্রে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের নামের শুধু উল্লেখ আছে, Read more…