৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ : আইএসএলের দলগঠন – বিষয় ইস্টবেঙ্গল ক্লাব।

Published by BADGEB Admin on

Last Updated 2:20 AM 5th September 2020 .

৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ : ব্যাডজেব ডট কম বলা যায় নতুন উদ্যম নিয়ে ফিরে এলো। শেষ বিশ বছরের সব থেকে বড় লড়াইটা হয়তো ইস্টবেঙ্গল জিতে নিলো, নিজের নামে এবছরেই আইএসএল খেলে। বাড়তি পাওনা? অবশ্যই শ্রী সিমেন্টের মতো এক ইনভেস্টর গ্রুপ যাদের হাতে আমাদের ভবিষৎ সুরক্ষিত বলেই মনে করেন লাল-হলুদ সমর্থক মহল। বড় লড়াইটা জিতে উঠে এবার আবার দলগঠনে মনোনিবেশ করার সময় লাল-হলুদের সামনে। দলের ম্যানেজমেন্ট, কোচ, বিদেশি, দেশীয় প্লেয়ার এখনো নির্বাচন বাকি আছে তাই আমরা আবার রোজকার দলগঠন খবরের নিয়ে আসবো আপনাদের কাছে মাঝে-মাঝেই। খবর আগেও দিয়েছি আমরা আপনাদের, এখনো দেবো তফাৎ শুধু এতটুকুই যে, এখন অনেকটা আশ্বস্ত লাগছে, অনেকটা হালকা লাগছে, অনেক চাপমুক্ত লাগছে নিজেদের। তাই নয় কি?

আজকের খবর গুলো :

★ নতুন ইনভেস্টর খুব শীঘ্রই মিটিংয়ে বসবেন ক্লাব কর্তাদের সাথে এবং সরকারিভাবে নতুন বোর্ড গঠন এবং ঘোষণা হবে।

★ যেহেতু আইএসএলের বিড ওপেন হয়েছে সরকারিভাবে তাই যাবতীয় ব্যবস্থাপনার সমাপ্তি এবং আইএসএলে সরকারিভাবে প্রবেশের ঘোষণাকেই সব থেকে গুরুত্ব দিচ্ছেন ক্লাবকর্তা থেকে ইনভেস্টর সকলেই।

★ তবে দলগঠনের কাজ থেমে নেই। যেহেতু হাতে সময় কম তাই, কর্তারা ইনভেস্টরের সাথে কথা বলে দেশীয় প্লেয়ারদের দিকটা দেখছেন। তবে আইএসএল দলের সর্বোচ্চ প্লেয়ার সংখ্যা হতে পারে ৩৫ বিদেশি নিয়ে তাই বিদেশি ছাড়া সেটা ২৮। সেই হিসাব করলে ইস্টবেঙ্গল ইতিমধ্যেই সরকারিভাবে ২৩-২৪ জন খেলোয়াড়ের নাম ঘোষণা করে দিয়েছে এই মরশুমের জন্য। সেই অনুযায়ী কর্তারা আর ৪-৫ জন দেশীয় প্লেয়ার হয়তো নিতে পারবেন বা তার বেশি ও নিতে পারেন তবে আইএসএলে রেজিস্ট্রেশন করাতে পারবেন ২৮ জন ভারতীয় কেই, এবার তারা কারা হবে সেটা ম্যানেজমেন্ট ঠিক করতে পারে।

★ যেহেতু দেশীয় প্লেয়ার নেওয়ার সংখ্যা এই মুহূর্তে দাঁড়িয়ে সীমিত তাই দলগঠন করতে হচ্ছে অনেক ভেবে চিন্তে। জেজের কাছে ইতিমধ্যেই নতুন অফার গেছে ইস্টবেঙ্গলের তরফ থেকে। আপ-ফ্রন্টে বিনীত এবং বলবন্ত এর সাথে জেজে যোগ হলে, খাতা কলমে দেশের সেরা দেশীয় স্ট্রাইকিং লাইন তৈরি করবে ইস্টবেঙ্গল।

★ দুই ডিফেন্ডার আনাস এবং সন্দেশ ঝিঙ্গানের কাছেও অফার গেছে ইস্টবেঙ্গলের পক্ষ থেকে। আনাসের ইস্টবেঙ্গলে যোগদান নির্ভর করছে ইস্টবেঙ্গল ম্যানেজমেন্টের উপরে, আনাস যে আর্থিক শর্ত রেখেছেন সেটা মেনে নিলে তার আসতে কোনো সমস্যাই নেই তবে সেই শর্ত লাল-হলুদ মানে কিনা সেটাই দেখার।

★ আনাসের বিষয়টা টিম ম্যানেজমেন্টের হাতে থাকলেও, সন্দেশ ঝিঙ্গানের বিষয়টা হয়তো পুরোপুরি সন্দেশের উপরেই নির্ভর করছে। এবং যেহেতু সে এবছরে দেশের বাইরেই খেলতে চাইছেন এবং আইএসএলের অন্য দলগুলোর ও অফার আছে তার কাছে তাই এই লড়াইটা সহজ হবেনা। তবে আনাস বা সন্দেশের মধ্যে যেকোনো একজনকে অন্তত লাল-হলুদ জার্সি পড়তে দেখবো বলে আশাবাদী আমরা।

★ এ ছাড়াও রিকি সাবঙ এবং হারমানপ্রীত, আরোজের দুই প্লেয়ার এক সময় ইস্টবেঙ্গলে সই করে ফেলেই ছিল তবে শেষ মুহূর্তে তারা এআইএফএফের থেকে এনওসি পাননি যেহেতু ইস্টবেঙ্গলের আইএসএল খেলায় অনিশ্চয়তা ছিল। তবে এবার যখন ইস্টবেঙ্গলের অন্তর্ভুক্তি হয়ে গেছে আইএসএলে, সেক্ষেত্রে এই দুই তরুন তুর্কি লাল-হলুদ জার্সি গায়ে চাপান কিনা সেটাই দেখার।

★ বিদেশি কোচ নির্বাচন করবেন ইনভেস্টর গ্রুপ। তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে শীঘ্রই কোচ চূড়ান্ত করে ফেলা হবে। যেহেতু ইনভেস্টর গ্রুপকে ভালো দল গড়তে বদ্ধপরিকর মনে হচ্ছে প্রথমদিন থেকেই তাই ভালো মানের যে বিদেশি আসবে সেটা ধরে নেওয়াই যায়।

★ ইতিমধ্যেই নানান বিদেশি খেলোয়াড়ের নাম খবরে আসা শুরু হয়ে গেছে তবে বিশ্বাসযোগ্য সূত্র আছে বলে মনে হয়না কোনোটারই কারণ এই কাজও গোপনীয়তার সাথে হবে বলেই ধারণা।

খুব শীঘ্রই আবার আসবো আমরা নতুন খবর নিয়ে কারণ, খেলা তো সব শুরু হলো।


0 Comments

Leave a Reply

0 Shares
Copy link
Powered by Social Snap