ISL খেললে যুব ভারতীতেই খেলবে ইস্টবেঙ্গল। ভুয়ো খবরে কর্ণপাত না করার আর্জি জানানো হচ্ছে…

Published by BADGEB Admin on

Last Updated 5:09 PM 11th April 2020 .

ভারতের সেরা ফুটবল স্টেডিয়াম কোনটা? দেশের যেকোনো ফুটবল সমর্থককে জিজ্ঞেস করলেই তারা এক লহমায় নাম নেবে বিবেকানন্দ যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনের। বাংলার ফুটবলের আঁতুরঘর বলা চলে এই স্টেডিয়ামকে, যা বহু ইতিহাসের সাক্ষী।

হটাৎ আর প্লাস (R Plus) নামের একটা খবরের চ্যানেলের পক্ষ থেকে হটাৎ বলা হয় ইস্টবেঙ্গল এবছরে আইএসএল খেলবে শিলিগুড়ি থেকে। তারপরেই ইস্টবেঙ্গল সমর্থকরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন এবং নিজেদের প্রতিবাদ সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করতে থাকেন।

আমাদের পক্ষ থেকে সেই সমস্ত ইস্টবেঙ্গল সমর্থককে একদমই বিচলিত না হওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি। ইস্টবেঙ্গল এই মরশুমে আইএসএল খেললে সেটা অবশ্যই যুবভারতী থেকেই খেলবে এই বিষয় কোনো প্রকার সন্দেহ কারুর মনে রাখবেন না।

প্রথমত, ‘ওয়ান সিটি ওয়ান টিম’ প্রথা শুধু মাত্র প্রথম পাঁচ বছরের জন্যই ছিল আইএসএলে। বর্তমানে তার কোনো অস্তিত্ব নেই। দ্বিতীয়ত, ফুটবল ফেডারেশন প্রবলভাবে ইস্টবেঙ্গল কে চাইছে এবছরে আইএসএলে, এবং ইস্টবেঙ্গল-এটিকে দৈরথ কে কলকাতার ডার্বি হিসাবে হাইলাইট করাই অন্যতম লক্ষ তাদের আইএসএলের প্রচার বাড়াতে। এবং তৃতীয়ত, যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গন কোনো দলের সম্পত্তি নয়, ওটা রাজ্য সরকারের সম্পত্তি এবং আমাদের রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী কখনোই দুটো দলের মধ্যে বিভাজন করেন না, বা প্রশ্রয় দেননা। উপরন্তু, পরের বছরে ভোট থাকায় রাজনৈতিক দিক থেকে দেখলেও কখনোই তিনি ইস্টবেঙ্গল সমর্থকদের বঞ্চিত করে তাদের ক্ষোভের মুখে পড়তে চান না।

তাই জন্যই, ইস্টবেঙ্গলকে অন্য শহর থেকে খেলতে হবে এটা একদমই যুক্তিহীন বা ভিত্তিহীন খবর। তাই শুধু আজ বলে নয়, ভবিষ্যতেও এরকম খবর কোনো সংবাদ সংস্থা করলে সেটাকে গুরুত্ব দেওয়ার প্রয়োজন নেই। আসলে এইসব খবরগুলো তারা করে থাকেন শুধুমাত্র নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিতে কারণ আর প্লাস বা ইত্যাদি এই ধরণের ছোট চ্যানেলগুলো মাঝে মাঝেই অস্তিত্ব-সংকটে ভোগেন এবং তার জন্যই এই খবরগুলো করে একটু প্রচারের আলোয় আসার চেষ্টা করেন। তারা জেনেশুনেই এই খবরগুলো করেন সমর্থকদের বিচলিত করার জন্য তাই সেই ফাঁদে পা দিয়ে তাদের উদ্দেশ্য সফল করবেন না।

এবং ইস্টবেঙ্গলের পরের মরসুমের জন্য দলগঠনের কাজ দারুন গতিতে চলছে এবং পরের মরশুমে দল আইএসএলে খেলবে এটা ধরে নিয়েই দলগঠন চলছে। তবে, যেহেতু ৩১শে মে পর্যন্ত সরকারি ভাবে কোয়েস থাকছে তাই পয়লা জুনের আগে কোনো রকমের ঘোষণাই সরকারিভাবে করা হবেনা। ক্লাব থেকে প্লেয়ার সবাই যেকোনো রকমের দলবদলের খবর অস্বীকার করবে এটাই স্বাভাবিক। পরের মরশুম সম্পর্কে যাবতীয় সরকারি ঘোষণার আশায় থাকলে আপনি, আপনাকে পয়লা জুন পর্যন্ত অপেক্ষা করতেই হবে।


0 Comments

Leave a Reply

0 Shares
Copy link
Powered by Social Snap